বিস্তারিত

  • হোম
  • |
  • কি এই মেটাভার্স?
thumb
কি এই মেটাভার্স?
  • 10/31/2021 7:19:56 PM
  • মো: মোস্তাফিজার রহমান
  • 0 - Comments

মেটাভার্স হচ্ছে ভবিষ্যৎ  ইন্টারনেটের এক অত্যাধুনিক প্রযুক্তি যা বাস্তব জগতের মতো করে বানাবে ডিজিটাল বিশ্বকে।

ভেবে দেখুন তো এমন এক বিশ্বের কথা, একটি কোম্পানি যেখানে  তাদের একটি 
 নতুন মডেলের গাড়ি তৈরি করে সেটাকে  অনলাইনের  বাজারে ছেড়ে দিল এবং বিশ্বের যেকোনো স্থান থেকে একজন ক্রেতা হিসেবে আপনি গাড়িটি অনলাইনেই   
 চালিয়ে দেখতে পারলেন!

অথবা একটি পোশাক পছন্দ হলো অনলাইন  ঘরে বসে শপিং করার সময়। আপনি পোশাকটির  একটি ডিজিটাল সংস্করণ গায়ে দিয়ে দেখার পরই কেনার জন্য অর্ডার দিলেন!

বিষয়টা হয়তো সাই-ফাই মুভির মতো  কাল্পনিক মনে হচ্ছে। কিন্তু বাস্তবে  সেটা এখন আর  কল্পনার মাঝেই সীমাবদ্ধ থাকছে না। ইতোমধ্যে শুরু করে হয়ে গেছে এরকম এক প্রযুক্তি তৈরির কাজ । এই প্রযুক্তির ফলে পৃথিবীর মতো মনে হবে অনলাইনের ভার্চুয়াল জগতকে।

আপনার একজন  ফেসবুক বন্ধু  ধরা যাক পার্বত্য চট্টগ্রামে বেড়াতে যাওয়ার কিছু 
 অপূর্ব ছবি পোস্ট করেছেন। ফেসবুকে ওই ছবি দেখার সময় এই প্রযুক্তির কারণে  আপনার  মনে হবে আপনিও সেখানে উপস্থিত আছেন।
আর মেটাভার্স নামের এই প্রযুক্তির মাধ্যমে এসব ঘটবে বাস্তবে।

মেটাভার্সকেই বলা হচ্ছে  ইন্টারনেটের ভবিষ্যৎ।
 "মেটাভার্সকে থ্রি-ডি ভার্চুয়াল ওয়ার্ল্ড বলতে পারেন, বলেছেন তথ্য-প্রযুক্তিবিদ জাকারিয়া স্বপন। এখনকার বেশিরভাগ স্ক্রিন স্পেস হচ্ছে দ্বিমাত্রিক বা ২-d । কিন্তু মেটাভার্স জগতে হবে থ্রি-ডির মতো অভিজ্ঞতা । কারো সঙ্গে টেলিফোনে  কথা বললে মনে হবে তার সাথে সামনা-সামনি আলাপ করছেন "

মেটাভার্স প্রযুক্তিকে সাধারণ মানুষের কাছে আপাত  দৃষ্টিতে  মনে হতে পারে ভিআর বা  রিয়েলিটি - ভার্চুয়াল -এর কোন সংস্করণ। এটি আসলে কিন্তু  তার চেয়েও অনেক বেশি।

প্রযুক্তিবিদদের মতে মেটাভার্সের  সাথে ভার্চুয়াল-রিয়েলিটির তুলনা এখনকার দিনের স্মার্ট-ফোনের সাথে  ৮০'র দশকের মোবাইল ফোনের সাথে  তুলনা করার মতো।

ভিআর বর্তমানে  অনলাইন গেমিং-এর জন্য বেশিভাগ ক্ষেত্রে ব্যবহার করা হচ্ছে, কিন্তু সকল বিষয়ে বিশেষ করে - অফিসের আদালতের  কাজ থেকে শুরু করে গেমিং , অনুষ্ঠান বা কনসার্ট  কিংবা সিনেমা এমনকি দূরের প্রিয় বন্ধুদের সঙ্গে আড্ডা দেওয়ার জন্যও  মেটাভার্সের ব্যবহার হবে ।

আপনার মন্তব্যঃ

একই ধরনের সংবাদ

আপনার জন্য